চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসকসহ পাঁচ জনের মৃত্যু

করোনা উপসর্গ নিয়ে চট্টগ্রামে পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

দৈনিক আজকালের দর্পন ডেস্ক :   চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসকসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। তাছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন  আওয়ামী লীগের দুই নেতা। বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন  অবস্থায় পৃথক হাসপাতালে তারা মারা যান।  জানা যায়, চমেক হাসপাতালের ইর্মাজেন্সি মেডিকেল অফিসার ডা. মুহিত হাসানের গত ২৬ মে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়। ওইদিনই তিনি হাসপাতালের কেবিনে ভর্তি হন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত বুধবার তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত দুইজন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়। এছাড়া করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয় আরও একজন চিকিৎসকের। চমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আফতাবুল ইসলাম বলেন, ‘ডা. মুহিত হাসান আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথমে হাসপাতালের কেবিনে ভর্তি হন। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।’ এদিকে, চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দুই নারীর মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার বাসিন্দা ৫০ বছর বয়সী নারী বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা এবং নগরীর জামালখান এলাকার বাসিন্দা ৫৬ বছর বয়সী নারী সকাল ৭টার দিকে মারা গেছেন জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. আব্দুর রব বলেন, ‘৫০ বছর বয়সী নারী ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপেও আক্রান্ত ছিলেন। অপর নারীও উচ্চ রক্তচাপ এবং হাইপার টেনশনে ভুগছিলেন। দু’জনই আইসিইউতে ছিলেন।’ অন্যদিকে, করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন  আওয়ামী লীগের দুই নেতা। বৃহস্পতিবার ভোরে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম এবং গতকাল সকাল ৯টায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মোহরা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মো. রফিকুল আলম। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আজ সোমবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) এক সদস্য চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।  মো. মামুন উদ্দিন (২৯) নামের ওই পুলিশ সদস্য সিএমপির পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) বিভাগে দায়িত্বরত ছিলেন। সিএমপি সদর দপ্তরের উপকমিশনার আমীর জাফর জানান, মামুন উদ্দিন জ্বরসহ বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন। গত ২৯ মে থেকে তিনি সিএমপির দামপাড়া পুলিশ হাসপাতালের ফ্লু কর্নারে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি আরও বলেন, কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হওয়ায় দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফেনীর পরশুরামে তাকে দাফন করা হয়েছে।

শর্টলিংকঃ