চিকিৎসক শাহ আলমের খুনি ১১ ডাকাতের দুজন

 

দৈনিক আজকালের দর্পন নিজস্ব প্রতিনিধী  ঃনিজস্ব গাড়ি নিয়ে চট্টগ্রাম নগরীসহ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ডাকাতি করে বেড়ানো সেই ১১ ডাকাতের দুজন ‘গরিবের চিকিৎসক’ শাহ আলম খুনের সঙ্গে জড়িত।

শনিবার (২ নভেম্বর) ভোরে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানার টাইগারপাস এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১১ জনের এই ডাকাতদলকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ডাকাতদলের নেতা মো. সালাউদ্দিন (২৪) এবং মো. টিটু (২৫) নামের অপর এক ডাকাত গত ১৭ অক্টোবর সীতাকুণ্ডের সড়কে চিকিৎসক শাহ আলম হত্যায় সরাসরি জড়িত।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন। তিনি জানান, তাদের সম্পর্কে আরও তদন্ত করলে জানা যায়, ১১ জনের এই ডাকাতদলের নেতা মো. সালাউদ্দিন এবং মো. টিটু চিকিৎসক শাহ আলম হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত। প্রথমে এসব ডাকাতের বিরুদ্ধে মীরসরাইও আকবর শাহ থানায় বেশ কয়েকটি মামলার কথা জানা গেলেও আরও খোঁজ নিয়ে চিকিৎসক হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়টি বেরিয়ে এসেছে।

আন্তঃজেলা ডাকাতদলের ১১ সদস্যের রয়েছে নিজস্ব গাড়ি, এমনকি ট্রাকও। সেটা ব্যবহার করেই ডাকাতি করে ওরা। ভোরে চট্টগ্রাম নগরে আসা বাস-ট্রেনের যাত্রীরাই তাদের মূল টার্গেট। যাত্রীদের অনুসরণ করে নির্জন জায়গা বুঝে অস্ত্র ও ছুরি ঠেকিয়ে মোবাইল-টাকা ছাড়াও নিয়ে নেয় সঙ্গে থাকা পাসপোর্টসহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র। এরপর শুরু হতো আরেক খেলা। মূল্যবান কাগজপত্র ফিরিয়ে দেওয়ার নামে বিকাশে আদায় করে চাঁদা।

চট্টগ্রাম নগরীই নয় শুধু, সীতাকুণ্ড ও মীরসরাই উপজেলা, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, ফেনী, কুমিল্লা, লাকসাম ও নোয়াখালী পর্যন্ত ছিল অপতৎপরতা। কিন্তু সবসময় তারা থাকে ধরাছোঁয়ার বাইরে। এর নেপথ্যে রয়েছে ডাকাতদলের অলিখিত এ কঠোর নিয়ম। ডাকাতির প্রতিটি ঘটনার পর পুরো এই ডাকাতদল চলে যায় সীতাকুণ্ডের পাহাড়ের গুহায়। পুলিশি তৎপরতা কমে না যাওয়া পর্যন্ত তারা অবস্থান করে সেই গুহাতে। এ কারণে পুলিশ হিমশিম খেয়ে যায় তাদের হদিস পেতে।জিজ্ঞাসাবাদে তারা সম্প্রতি সীতাকুণ্ড ও মিরসরাইয়ে ডাকাতি, নগরীর সাগরিকা এলাকায় মোটর পার্টসের দোকান, ফেনীর মহিপালে কাপড়ের দোকান, ফেনীতে চালের দোকান, চৌদ্দগ্রামে মার্কেট এবং ফেনী, কুমিল্লা, লাকসাম ও নোয়াখালী এলাকায় পিকআপ ভ্যান নিয়ে মহাসড়কে ডাকাতির কথা স্বীকার করেছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।