বিতর্কের মধ্যেই নাসির-তামিমার জমকালো বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান

সংগৃহীত ছবি

দৈনিক আজকালের দপর্ণ:

১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা। বিয়ের পর থেকে বিতর্ক উঠেছে দুজনকে নিয়ে। ২০ ফেব্রুয়ারির দিনজুড়েই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও সংবাদমাধ্যমে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন এই জুটি।

ইতোমধ্যে ডিভোর্স না নিয়ে আরেকজনকে বিয়ের ঘটনায় আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেছেন। উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাও (ওসি) শাহ মো. আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তবে পুলিশে জিডি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলা সমালোচনা আর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদকে পাত্তা না দিয়ে গুলশানের লেকশোর হোটেলে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত হলো নাসির তামিমা জুটির বিবাহোত্তর সংবর্ধনা। এই সংবর্ধনায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে ছিলেন অনেকে।

এর আগে রাকিব ও নাসিরের ফোন রেকর্ডে রাকিবকে ফোন করে জিডি করার ব্যাপারটি ধামাচাপা দিতে বলেন নাসির। রাকিবের প্রশ্ন ছিল আপনি কি তামিমা সম্পর্ক সব কিছু জানেন? উত্তরে নাসির হোসেন বলেন, তার সবকিছু জেনেশুনেই আমি তাকে বিয়ে করেছি। তার বাচ্চা আছে, তার আগেও বয়ফ্রেন্ড ছিল সবকিছুই আমি জানি। আপনার বউ আপনার সঙ্গে ভালো থাকলে নিশ্চয়ই আপনার ১১ বছরের সংসার ভেঙে আমার কাছে চলে আসত না।

রাকিব হাসান ও তামিমার কাবিননামায় দেখা যায় ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তিন লাখ টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে হয়। রাকিবের দাবি, গত ১১ বছরে তার স্ত্রীর পড়াশোনা থেকে শুরু করে জব সবক্ষেত্রেই তিনি সাহায্য করেছেন।

শর্টলিংকঃ