বিদেশ থেকে নেগেটিভ সনদ নিয়ে এলেও টেস্ট করা হবে

ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

দৈনিক আজকালের দর্পন ডেস্ক :  বিদেশ থেকে যারা নেগেটিভ সনদ নিয়ে আসবেন তাদেরও টেস্ট করা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনায় বিমানবন্দরগুলোতে প্রবাসীদের টেস্ট কড়াকড়ি করা হয়েছে। যদি কারো পজেটিভ হয় তাহলে তাকে আইসোলেশনে পাঠানো হবে। তবে প্রত্যেকেরই টেষ্ট করা হবে। যাদের নেগেটিভ হবে তারা সেল্ফ আইসোলেশনে যাবেন।
এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বিভিন্ন দেশে ফ্লাইট বন্ধ বা খোলা হবে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বুঝে।
মিয়ানমারের নির্বাচনে অং সান সুচির দল জেতার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রত্যেক দেশ স্বীকৃতি দিলে বাংলাদেশও বিবেচনা করবে।
রোহিঙ্গা ইস্যুতে বলেন, ভাষাণচরে অচিরেই রোহিঙ্গাদের পাঠানো হবে। রোহিঙ্গাদের পাঠাতে বাংলাদেশ চীন ও মিয়ানমার মিলে ত্রিপক্ষীয় আলোচনা চলছে বলে তিনি জানান।
এ দিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, খসড়া “সিলেট উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইন, ২০২০” বিষয়ে সিলেট অঞ্চলের নেতৃবৃন্দের সাথে আজ ঢাকায় ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় খসড়া আইনের বিষয়ে নতুন কোন পরামর্শ থাকলে তা আগামী ১০ দিনের মধ্যে লিখিত আকারে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়।
মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, সিলেট মহানগরের পরিধি বাড়ানোর কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে এবং বেশ অগ্রসর হয়েছে। নগর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠিত হলে পরিকল্পিতভাবে কাঙ্খিত উন্নয়ন হবে। সেকারণে এ আইন প্রণয়ন করা অত্যন্ত জরুরি। সিলেট উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইনের খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে। মুজিববর্ষে এ আইন প্রণয়ন করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ বিষয়টি ত্বরান্বিত করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। ড. মোমেন বলেন, শেখ হাসিনার সরকার হলো জনগণের সরকার, তৃণমূলের সরকার। সেকারণে সবার সাথে আলোচনার মাধ্যমে এ আইন প্রণয়নের জন্য মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে।
সভায় জানানো হয়, সিলেট মহানগরীকে একটি আধুনিক ও আকর্ষণীয় পর্যটন নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠা এবং এ অঞ্চলের সুপরিকল্পিত উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠার জন্য আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: শহীদ উল্লা খন্দকার।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী মো: নুরুল ইসলাম নাহিদ, সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ কয়েস, আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট চেম্বার সভাপতি আবু তাহের মো: শোয়েব, সিলেট উইমেন চেম্বারের সভাপতি স্বর্ণলতা রায়।
শর্টলিংকঃ