শিক্ষাঙ্গনে রাজনীতির রক্তের ছাপ!আক্রান্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, তাণ্ডব এবিভিপির 

সত্যজিৎ মণ্ডল, কলকাতাঃ আবারও উত্তপ্ত কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। ছাত্র সংগঠন এবিভিপির নবীন বরণ অনুষ্ঠানে যোগদিতে এসে নিগৃহীত হলেন ভারতবর্ষের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। অবশেষে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আসরে নামতে হল রাজ্যপাল জগদীশ ধনকড়কে৷ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছে কার্যত বিক্ষোভকারীদের হাত থেকে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করলেন তিনি৷ নিজের গাড়িতে উঠিয়ে নেন বাবুলকে৷ যদিও প্রায় ঘণ্টা দেড়েক আটকে থাকার পর অবশেষে রাত আটটা নাগাদ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন নম্বর গেট দিয়ে বেরিয়ে যায় রাজ্যপালের কনভয়৷ সঙ্গে ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়ও৷
শুধু বাবুল নয় তাঁকে উদ্ধার করতে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য তথা  রাজ্যেপাল বিক্ষোভের হাত থেকে রেহাই পাননি ৷ এদিন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিক্ষোভকারীরা রাজ্যপালের গাড়ি চাপড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন৷ আটকে রাখা হয় রাজ্যপালের গাড়ি৷ শ্লোগান তোলা হয় বাবুল সুপ্রিয়ের বিরুদ্ধে৷
একদিকে নানা প্রতিকূল পরিস্থিতি লঘুকরে রাজ্যপাল বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে রাজভবনের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে অন্য দিকে ক্যাম্পাসের চার নম্বর গেট দিয়ে ঢুকে ছাত্র সংসদ কার্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে এবিভিপি সমর্থকরা বলে অভিযোগ। সেখানে আগুন জ্বালিয়ে চলতে থাকে প্রতিবাদ।পাশাপাশি ওই অঞ্চলে পথ অবরোধ চলতে থাকে৷ ফলে সমস্যায় পরতে হয় নিত্যযাত্রী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের। ঘটনার পরিপেক্ষিতে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস থেকে জানানো হয়েছে, বিজেপিকে সাহায্য করার জন্য ক্যাম্পাসে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল। যদিও রাজ্যপাল জানান, পশ্চিমবঙ্গে চরম বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি চলছে। দ্রুত এর নিষ্পত্তি হওয়া প্রয়োজন।
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।